শেষ হাতিয়ার

তারারা নক্ষত্রের পানে ধাবমান
ক্ষীপ্র অশ্বের মত বিগত শরতের চুম্বন
নস্টালজিয়ায় আক্রান্ত করে প্রতিক্ষণ
অপেক্ষায় চির ধরেছে ধমনীর উৎসমুখে
লোকজ ভাষায় হৃদয় যার কথ্য নাম।

ডান অলিন্দ!
এক নাগাড়ে সেঁচে গেছে বিশুদ্ধ প্রেম
ক্লান্তি জনিত স্থবিরতায় কাবু বেশ
রেশ ছিলো সহজিয়া কথনে চোখের আচকান
আটকে থাকা বোতাম ঘরে সুঁচ বিধেছে চুপিসারে
বেদনা মিশ্রিত বালি কণা অক্ষিগোলকে বর্শা বিধায়
জল ছলছল কাঁকন বাজেনা শিরায়।

বাম অলিন্দ!!
অপরিশোধিত রক্ত পরিশোধনের বিষ
জমা বই প্রকোষ্ঠের কুঠুরিতে থরোথরো
তপ্ত নিঃশ্বাসে অগ্নিকন্যে হতে ইচ্ছে জাগেনা আর
বিগত শরৎ এক শান্ত সত্বায় চিনিয়েছে ঠাঁই
নির্ভার মন হৃদয়কে করেছে শাসন।

দুকুল ছাপানো প্লাবন!!!
ধাবমান রাতের তারারা নক্ষত্রের বুক লুটতরাজের নেশায়
কালচে ভেলায় ছোটে তিয়াসা মেটানো চুম্বনের খোঁজে
হৃদয়ের অলিতে গলিতে সন্ধান করে তীক্ষ্ণ বাজ
রাজ শিকারী ঈগল ভালোবেসেছিলো মরুর বেদুঈন
ভালোবাসায় মশক ভর্তি রুক্ষ চুম্বন ছিলো যার
শেষ হাতিয়ার!
অভিমানের


রচনাটি অন্য ভাষায় পড়ুন
English Spanish Hindi Portuguese Arabic Chinese Russian Japanese

বিঃদ্রঃ মুক্তকলাম সাহিত্য ডায়েরি, লেখকের মতপ্রকাশের পূর্ণ স্বাধীনতার প্রতি সম্মান রেখে, কোন লেখা সম্পাদনা করা হয়না। লেখার স্বত্ব ও দায়-দায়িত্ব শুধুমাত্র লেখকের।
আপনার রচিত সাহিত্যসমগ্র স্থায়ীভাবে সংরক্ষণ এবং বিশ্বের কোটি পাঠকের কাছে পৌঁছে দিতে আজই যুক্ত হউন।