কবিতা

জুলেখা

আবুল হোসেন খোকন

শূন্যের গহ্বর থেকে নক্ষত্রের মতো জন্মেছি বিদ্যুৎলতা
সমতার দেয়াল ভেঙে নীল কষ্টের মৃগনাভী বিষন্ন নির্মাণ;
অগনন আলোকবর্ষে ছিলো পদচিহ্ন, আলেয়ার বিমুগ্ধ চাদর
তবু ছিলো শামুকের শাদা পিঠ এলোমেলো এখানে-সেখানে
দৃষ্টির ভাঁজে ছিলো আলথালু ভেজা মেঘ, শ্রাবণের বিলাপ
ঠাণ্ডায় হৃদপিণ্ড নিয়ে হেঁটে যাওয়া- সখী ভালোবাসা কারে কয়?
বাস্তুভিটায় যারা জ্বেলে রাখে কামগন্ধা রাতের জ্বলন্ত জোনাক
নীল জ্যোৎস্নায় দাপাদাপি আর দুধশাদা কবুতরী স্নান
বিমোহিত দিঘীর ঢেউ ভাঙে যারা সৃষ্টির তাণ্ডবে নিথর অন্ধকার
নীল রক্তের বীজে তারা বুনেছিলো ভুল, এক সফেদ ন্যাপথলিন।
ভুল থেকে অবশেষে নীলকণ্ঠ বিনির্মাণ, অভিশপ্ত সুন্দর
এইখানে আমাদের শিখণ্ডী ভূমির সিথান
গলে যাই গঠণের প্রত্যাশায়
প্রতিদিন, আহা সফেদ ন্যাপথলিন
গলে যাই গঠণের প্রত্যাশায় প্রতিদিন,
আহা সফেদ ন্যাপথলিন
গলে যাই গঠণের প্রত্যাশায় প্রতিদিন, আহা
সফেদ ন্যাপথলিন

মঙ্গলবার, ০৪ অক্টোবর ২০১৬
বনশ্রী

কবিতা - জুলেখা © সর্বস্বত্ব ও দায়/দায়িত্ব শুধুমাত্র লেখকের


  • পড়া হয়েছে: ৪০০
  • মুক্তকলামে প্রকাশিত: শনিবার, ০২ মার্চ ২০১৯
আপনার রচিত সাহিত্যসমগ্র স্থায়ীভাবে সংরক্ষণ এবং বিশ্বের কোটি পাঠকের কাছে পৌঁছে দিতে যুক্ত থাকুন মুক্তকলামে