বৈরী বাতাসে কোমল আগুন

বৈরী বাতাসে কোমল আগুন

নাসরিন সিমি
প্রকাশনী » ধ্রুপদী পাবলিকেশন্স
প্রকাশিত » ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২০
অ-লক্ষ্মী

অ-লক্ষ্মী

শম্পা হাসনাইন
প্রকাশিত » ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২০
বইমেলায় আরো বই »
চট্টগ্রাম রাউজানের অপরাজিতা সেবাশ্রম ও দক্ষিণ রাউজান সহ

রাউজানে গঙ্গা মন্দিরের ঘাটে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা প্রতিমা বিসর্জন দেন


নিজস্ব প্রতিবেদক

রাউজানে কেন্দ্রীয় গঙ্গা মন্দিরের সনাতন ধর্মাবলম্বীরা প্রতিমা বিসর্জন দেন
রাউজানে কেন্দ্রীয় গঙ্গা মন্দিরের সনাতন ধর্মাবলম্বীরা প্রতিমা বিসর্জন দেন

উপজেলা পর্যায়ে সবচেয়ে বেশী দুর্গাপূজা অনুষ্টিত হয় চট্টগ্রামের রাউজানে। এবার উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ২৩২ টি পূজা মন্ডপে অনুষ্টিত হয়েছে শারদীয়া দুর্গাপূজা। প্রতিমা বিসর্জনের দিনেও তাই উপজেলার দুই প্রান্তে ছিল উৎসবের আমেজ। উত্তর রাউজানের রাউজানের অপরাজিতা সেবাশ্রম ও দক্ষিণ রাউজানে কেন্দ্রীয় গঙ্গা মন্দিরের ঘাটে নিয়ে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা প্রতিমা বিসর্জন দেন।

রাউজানের অপরাজিতা সেবাশ্রমে প্রতিমা বিসর্জন উপলক্ষে আয়োজিত বিজয়া সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন রেলপথ মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরী এম.পি। রাউজান উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি প্রিয়তোষ চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সুমন দে’র সঞ্চালনায় অনুষ্টানে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান এহেছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জুনায়েদ কবির সোহাগ, সি. সহকারি কমিশনার (ভূমি) এহসান মুরাদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি কাজী আবদুল ওহাব, সি. সহ সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম, রাউজান থানার অফিসার ইনচার্জ কেফায়েত উল্ল্যাহ, রাউজান পৌরসভার প্যানেল মেয়র বশির উদ্দিন খান, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি জমির উদ্দিন পারভেজসহ উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির নেতৃবৃন্দ। দক্ষিণ রাউজানের কেন্দ্রীয় গঙ্গা মন্দিরে প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্টানে বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ রাউজান উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি প্রকাশ শীলের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ম্যালকম চক্রবর্তীর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ রাউজান পূজা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ। প্রতিমা বিসর্জন উপলক্ষে দুপুর থেকে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের আগমনে মুখড়িত হয়ে উঠে অনুষ্টানস্থল। ধর্মীয় সংগীত ও নানা আয়োজন উপভোগ করেন পূর্ণার্থীরা।

এবার রাউজানের উত্তর ও দক্ষিণে সর্বমোট ২৩২ টি মন্দিরে প্রতিমা বিসর্জন দেওয়া হয়। তন্মধ্যে দক্ষিণ রাউজানে ১১১টি এবং উত্তর রাউজানে ১২১ টি।